গুগল আর ফেসবুকের ব্যর্থতা

0
6
গুগল আর ফেসবুকের ব্যর্থতা

অনলাইন বা ইন্টারনেট মানব সভ্যতার জন্য যেমন আশীর্বাদ তেমনি এর কুফলও আছে। এসব কুফলের একটি হলো অনলাইনে প্রতারণা মূলক বিজ্ঞাপন। যার মাধ্যমে পুরো বিশ্বের অনেক ইন্টারনেট ব্যবহারকারী ক্ষতিগ্রস্ত হয়। প্রতি বছর প্রায় কয়েক মিলিয়ন ডলার হাতিয়ে নেয় প্রতারণাকারীরা এসব বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে। এর পিছনে মূল কারণ গুগল আর ফেসবুকের ব্যর্থতা। 

অবাক করার মতো বিষয় হচ্ছে, অনলাইনে প্রতারণামূলক বিজ্ঞাপন সরাতে ব্যর্থ হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের সোস্যাল মিডিয়া প্লাটফর্ম ফেসবুক এবং সার্চ ইঞ্জিন জায়ান্ট গুগল। সম্প্রতি ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ সংস্থা হুইচ?-এর এক গবেষণায় তথ্য উঠে এসেছে। গবেষণা প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে, ৩৪ শতাংশ স্ক্যাম বিজ্ঞাপনের তথ্য সরাতে ব্যর্থ হয়েছে গুগল এবং ২৬ শতাংশ সরাতে ব্যর্থ হয়েছে ফেসবুক। তথ্য এসেছে বিবিসির এক রিপোর্টে। যদিও ফেসবুক এবং গুগল উভয় প্রতিষ্ঠান দাবি করেছে, তারা প্রতারণামূলক বিজ্ঞাপনগুলো সরিয়ে নিয়েছে, তথাপি গুগল আর ফেসবুকের ব্যর্থতা প্রশ্নবিদ্ধ হয়েছে। 

হুইচ মনে করছে, ব্যাপারে তাদের আরো কঠোর পদক্ষেপ নেয়া উচিত ছিল। তাদের গবেষণা প্রতিবেদনে বলা হয়, জরিপে দেখা গেছে, ১৫ শতাংশ ব্যবহারকারী অনলাইন স্ক্যাম বিজ্ঞাপনে রিপোর্ট করেন। এর মধ্যে ফেসবুকে রিপোর্ট করেন ২৭ শতাংশ এবং গুগলে ১৯ শতাংশ। অন্যদিকে ৪৩ শতাংশ ব্যবহারকারী এসব বিজ্ঞাপনে রিপোর্ট করেন না। ফেসবুকের স্ক্যাম বিজ্ঞাপনে রিপোর্ট না করার পেছনে অধিকাংশ ব্যবহারকারী জানিয়েছেন, তারা মনে করেন যে এতে তাদের অ্যাকাউন্টের নিরাপত্তা বিঘ্নিত হবে। এ কারনেই প্রশ্নবিদ্ধ হয়েছে গুগল আর ফেসবুকের ব্যর্থতা। 

অন্যদিকে গুগলের স্ক্যাম বিজ্ঞাপনে অনেকেই রিপোর্ট করতে জানেন না। হুইচ? বলছে, অনলাইন প্লাটফর্মে প্রতারণামূলক বিজ্ঞাপন দেখানোর সময় ব্যবহারকারীদের হাতে রিপোর্ট করার অপশন রয়েছে।

যাতে ব্যবহারকারীরা প্রতারণামূলক বিজ্ঞাপন থেকে রক্ষা পায়। হুইচ?-এর ভোক্তা অধিকার বিশেষজ্ঞ অ্যাডাম ফ্রেঞ্চ বলেন, প্রতারণামূলক বিজ্ঞাপন সরানোর জন্য ফেসবুক, গুগলসহ অন্যান্য প্রযুক্তিবিষয়ক প্রতিষ্ঠান, নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ সরকারকে একযোগে কাজ করতে হবে। অনলাইন প্লাটফর্মগুলোকে অবশ্যই প্রতারণামূলক বিজ্ঞাপন সরানোর দায়িত্ব নিতে হবে, ভুয়া কনটেন্টের ব্যাপারে কঠোর অবস্থান নিতে হবে এবং সরকারকে সংশ্লিষ্ট বিষয়ে আইন প্রণয়ন করতে হবে। কোনোমতেই হাল্কা করে দেখা যাবে না গুগল আর ফেসবুকের ব্যর্থতা। 

ফেসবুকের এক প্রতিনিধি জানান, সোস্যাল মিডিয়াটিতে প্রতারণামূলক কার্যক্রম অনুমোদিত নয় এবং যুক্তরাষ্ট্রে আমরা একাধিক পেজের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিয়েছি। পড়ুন গুগল আর ফেসবুকের ব্যর্থতা। 

একই সময় গুগল জানায়, তারা কোটি ১০ লাখের বেশি বিজ্ঞাপন সরিয়ে দিয়েছে বা ব্লক করেছে। সার্চ ইঞ্জিন প্রতিষ্ঠান বলেছে, অনলাইনে স্ক্যাম বিজ্ঞাপনগুলো আমরা সবসময় পর্যবেক্ষণ করি। প্রতিষ্ঠানের নীতিমালা লঙ্ঘন করলেই আমরা সাইট ব্লক করে দিই বা কনটেন্ট সরিয়ে দিই। গুগল আরো বলেছে, ব্যাপারে আমাদের কঠোর নীতিমালা রয়েছে এবং প্রতারণামূলক বিজ্ঞাপন দেখতে পেলেই আমরা সেটি সরিয়ে দিই।

 তবে এসব বিজ্ঞাপন বা স্ক্যাম কমানোর জন্য এসব টেকজায়ান্টকে আরো কঠোর ব্যবস্থা নিতে হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here