৬ দশকে প্রথমবার লোকসানের মুখ দেখলো বাটা

0
8
লোকসানের বাটা

“বাটা” এমন একটি বহুজাতিক কোম্পানি যার নাম জানে না এমন লোক পাওয়া কঠিন। বাংলাদেশে জুতার জগতে বাটার পরিচয় নতুন করে দেয়ার আসলে কোনো প্রয়োজন নেই। এদেশে বাটার পথচলা শুরু হয় ১৯৬২ সালে। এরপর থেকে ৫৯ বছরে বাটাকে কখনোই লোকসানের মুখোমুখি হতে হয় নি। তবে বাটার সে ঐতিহ্যকে এবার ম্লান করে দিয়েছে করোনা ভাইরাস। বাংলাদেশে এই প্রথম লোকসান গুনতে হয়েছে এই বহুজাতিক কোম্পানি বাটাকে।

প্রতিষ্ঠানটির বিবৃতি মতে, করোনাকালীন সময়ে বিক্রিতে ধস নামায় ২০২০ সাল শেষে বাটা মোট ১৩২ কোটি ৬১ লাখ টাকা লোকসান করেছে। অথচ এর আগের বছর প্রায় ৫০ কোটি টাকা লাভ করেছিল এই কোম্পানি।

এদিকে লোকসানের পরই বুধবার ২০২০ সালে শেয়ার প্রতি ৯৬ টাকা ৯৪ পয়সা লোকসানের তথ্য দিয়ে কোম্পানিটি ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) ওয়েবসাইটে বলছে, “২০২০ সালে বাটা সু বাংলাদেশ সামগ্রিক ব্যবসায় সংকটের মধ্য দিয়ে গিয়েছে। এই লোকসান বাটা সু কোম্পানির আয়কে পিছিয়ে দিয়েছে।”

বাটা বলছে, মহামারীতে লকডাউনের কারণে ২০২০ সালে দুই ঈদ, পহেলা বৈশাখ কিংবা পূজার মতো উৎসবগুলোতে তেমন বিক্রি হয় নি। অথচ এসব উৎসব থেকেই অন্যান্য বছর মোট আয়ের ৩০ শতাংশ লভ্যাংশ চলে আসতো। এছাড়াও গত বছর করোনার কারণে প্রায় ৭৭ শতাংশ পাইকারি বিক্রেতা এবং ডিলার করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন।

বাটার হেড অব মার্কেটিং ইফতেখার মল্লিক এর মতে, বাংলাদেশে বাটা এর আগে কখনোই এতোটা খারাপ ব্যবসা করে নি। সাম্প্রতিক সময়ে করোনার কারণে বাটার ব্যবসা মন্দা যাচ্ছে। বিগত বছর গুলোতে বাংলাদেশে প্রতিবছরই তাদের বিক্রি বেড়েছে। বর্তমানে করোনার কারণে বাটার সমস্ত রপ্তানি বাজার বন্ধ। ফলে ২০২০ সালে বাটা তেমন রপ্তানিই করতে পারে নি।

তবে এ বছরের শেষের দিকেই ঘুরে দাঁড়ানোর ব্যাপারে আশাবাদী ইফতেখার মল্লিক। তার মতে, করোনার কোনো বিধিনিষেধ না থাকলে এ বছরেই তাদের ঘুরে দাঁড়ানো সম্ভব।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here